কে বলে গরীব !?!

সরকার বাহাদুর কিন্তু বুক ফুলিয়ে বলতেই পারে বাংলাদেশের ব্যাপক উন্নতি হয়েছে।
 
দেখেন না ইভ্যালি, ইঅরেঞ্জ, সিরাজগঞ্জ শপ, আনন্দ বাজার, কিউকম, নিরাপদ, ধামাকা শপিং, এসপিসি, ২৪টিকেট সহ আগের ডেসটিনি, যুবক নামের কোম্পানিতে কত হাজার নাগরিক কত হাজার কোটি টাকা দিয়ে রেখেছে। জনগনের পকেটে টাকা আছে বলেই না তারা এসব কোম্পানিকে টাকা দিয়েছে।
 
কোন এক পত্রিকায় দেখেছিলাম এরকম ৬ প্রতারক কোম্পানির কাছে গ্রাহকদের ৩ হাজার ৬০০ কোটি টাকা পাওনা।
আর হালাল ব্যবসার কথা বলে এহসান গ্রুপ একাই হাতিয়ে নিয়েছে ১৭ হাজার কোটি টাকা।
 
এই দেশের জনগন ব্যাক্কল হতে পারে, তবে গরীব না

রিফাত জামিল ইউসুফজাই

জাতিতে বাঙ্গালী, তবে পূর্ব পূরুষরা নাকি এসেছিলো আফগানিস্তান থেকে - পাঠান ওসমান খানের নেতৃত্বে মোঘলদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে। লড়াই এ ওসমান খান নিহত এবং তার বাহিনী পরাজিত ও পর্যূদস্ত হয়ে ছড়িয়ে পড়ে টাঙ্গাইলের ২২ গ্রামে। একসময় কালিহাতি উপজেলার চারাণ গ্রামে থিতু হয় তাদেরই কোন একজন। এখন আমি থাকি বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায়। কোন এককালে শখ ছিলো শর্টওয়েভ রেডিও শোনা। প্রথম বিদেশ ভ্রমণে একমাত্র কাজ ছিলো একটি ডিজিটাল রেডিও কেনা। ১৯৯০ সালে ষ্টকহোমে কেনা সেই ফিলিপস ডি ২৯৩৫ রেডিও এখনও আছে। দিন-রাত রেডিও শুনে রিসেপশন রিপোর্ট পাঠানো আর QSL কার্ড সংগ্রহ করা - নেশার মতো ছিলো সেসময়। আস্তে আস্তে সেই শখ থিতু হয়ে আসে। জায়গা নেয় ছবি তোলা। এখনও শিখছি এবং তুলছি নানা রকম ছবি। কয়েক মাস ধরে শখ হয়েছে ক্র্যাফটিং এর। মূলত গয়না এবং নানা রকম কার্ড তৈরী, সাথে এক-আধটু স্ক্র্যাপবুকিং। সাথে মাঝে মধ্যে ব্লগ লেখা আর জাবর কাটা। এই নিয়েই চলছে জীবন বেশ।