ম্যাক্রো ফটোগ্রাফী : ট্রিকস (নাইকন ক্যামেরা)

Aperture Control Leverনাইকন ব্যবহারকারী যারা ম্যাক্রো ফটোগ্রাফীর জন্য ম্যানুয়াল এক্সটেনশন টিউব বা রিভার্স রিং এডাপ্টার নিয়েছেন, তারা তাদের G লেন্স নিয়ে একটু বেকায়দাতেই পড়বেন প্রথম প্রথম। কারণ এসব লেন্সে D লেন্সের মতো আলাদা কোন এপারচার রিং নেই, ক্যামেরা থেকে খোলার পর এপারচার একদম ছোট এপারচারে এসে সেট হয়। এমনিতেই এক্সটেনশন টিউব/রিভার্স রিং এডাপ্টার দিয়ে ম্যাক্রো ফটোগ্রাফী করতে গেলে আলো একটা বড় সমস্যা, তারপর এই ছোট এই এপারচার হলে প্রায় কোন আলোই আসবে না। এর একটা সহজ সমাধান আছে।

লেন্সের পিছনদিকে (লেন্স মাউন্ট) আপনি একটা ছোট লিভার দেখতে পাবেন, যেটাকে বলে এপারচার কন্ট্রোল লিভার। এই লিভারটি আলতো করে সরালে দেখবেন এপারচার বড় হচ্ছে। এখন আপনার কাজ হলো পাতলা/হালকা কিছু দিয়ে লিভারটি জ্যাম করা, মানে আটকে দেয়া। আপনি কাগজ, ম্যাচের কাঠি এসব দিয়ে লিভারটিকে জায়গামতো আটকে দিতে পারেন। তবে ভুলেও খূব বেশী চাপাচাপি করবেন না।

হ্যাপি ক্লিকিং …

Featured Image : Dead Butterfly
Camera Nikon D7100, Lens AF-S 55-200mm + Raynox DCR-250
Lighting Mcoplus LED Lights
মূল ছবিটি পাবেন এখানে

রিফাত জামিল ইউসুফজাই

জাতিতে বাঙ্গালী, তবে পূর্ব পূরুষরা নাকি এসেছিলো আফগানিস্তান থেকে - পাঠান ওসমান খানের নেতৃত্বে মোঘলদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে। লড়াই এ ওসমান খান নিহত এবং তার বাহিনী পরাজিত ও পর্যূদস্ত হয়ে ছড়িয়ে পড়ে টাঙ্গাইলের ২২ গ্রামে। একসময় কালিহাতি উপজেলার চারাণ গ্রামে থিতু হয় তাদেরই কোন একজন। এখন আমি থাকি বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায়। কোন এককালে শখ ছিলো শর্টওয়েভ রেডিও শোনা। প্রথম বিদেশ ভ্রমণে একমাত্র কাজ ছিলো একটি ডিজিটাল রেডিও কেনা। ১৯৯০ সালে ষ্টকহোমে কেনা সেই ফিলিপস ডি ২৯৩৫ রেডিও এখনও আছে। দিন-রাত রেডিও শুনে রিসেপশন রিপোর্ট পাঠানো আর QSL কার্ড সংগ্রহ করা - নেশার মতো ছিলো সেসময়। আস্তে আস্তে সেই শখ থিতু হয়ে আসে। জায়গা নেয় ছবি তোলা। এখনও শিখছি এবং তুলছি নানা রকম ছবি। কয়েক মাস ধরে শখ হয়েছে ক্র্যাফটিং এর। মূলত গয়না এবং নানা রকম কার্ড তৈরী, সাথে এক-আধটু স্ক্র্যাপবুকিং। সাথে মাঝে মধ্যে ব্লগ লেখা আর জাবর কাটা। এই নিয়েই চলছে জীবন বেশ।