প্যাশন ফর পেপার্স

ক্র্যাফটিং ম্যাটেরিয়াল সাপ্লায়ার রিভিউ : প্যাশন ফর পেপার্স

আমি গত কয়েক মাস ধরে ফেসবুক ভিত্তিক অনলাইন শপ থেকে নিয়মিত ক্র্যাফটিং ম্যাটেরিয়াল কিনছি। এর মধ্যে ৪/৫ জনের কাছ থেকে প্রায় নিয়মিত বিরতিতে। এদের মধ্যে অন্যতম তাসফিয়া তানজিম (Tasfia Tanzim) আর তার গ্রুপ / পেজ হলো প্যাশন ফর পেপারস। নামেই পরিচয়, তাসফিয়া মূলতঃ পেপার ক্র্যাফটের মাল-মশলা সরবরাহ করেন। এর বাইরেও অন্যান্য কিছু ক্র্যাফটিং ম্যাটেরিয়াল আছে, যেমন বিডস। এর আগে বিভিন্ন জিনিস কিনলেও এবার প্রথমবারের মতো বিভিন্ন ধরণের কিছু পেপার অর্ডার করেছিলাম। আমার একটা ভয় ছিলো যে কুরিয়ার সার্ভিসে কাগজ না আবার নষ্ট হয়ে যায়। দেখা গেলো চমৎকার করে প্যাক করায় কোন রকম ঝামেলাই হয় নি। উপরন্তু কাগজগুলি পলিপ্যাকে ছিলো, ফলে বৃষ্টিতেও কোন সমস্যা করে নাই।

এবার আসি কাগজের কথায়। প্যাশন ফর পেপার্সে বিভিন্ন ধরণের কাগজ আছে। আমি কয়েক পদের অর্ডার করেছিলাম। আমার মূলতঃ গ্রিটিংস কার্ড তৈরীর জন্য কাগজ দরকার ছিলো। তাই আমি একটু বেশী পূরুত্বের কাগজ খূজছিলাম, মানে একটু মোটা আরকি। মডেল পেপার, হ্যান্ড মেইড মার্বেল পেপার, কার্ড পেপার, টেক্সচার পেপার আর ডিজাইন এর জন্য কিছু প্রিন্টেড হ্যান্ডমেইড পেপার। প্রিন্টেড হ্যান্ডমেইড পেপার ছাড়া বাকি সব পেপারই কার্ডের বেস হিসেবে ইউজ করা যাবে বা মূল কার্ড হিসেবেই। প্রিন্টেড হ্যান্ডমেইড পেপারগুলো একটু পাতলা, কিন্তু ডিজাইনগুলো আমাদের দেশী মোটিফ এ। আপনি যদি কার্ডে আমাদের দেশীয় আবহ আনতে চান, তবে এই পেপারগুলো নিঃসন্দেহে আপনি পছন্দ করবেন। সবধরণের পেপারই ৬ থেকে ১২টি ডিজাইন অথবা কালারের সমন্বয়ে এক একটি সেট। আর দাম মোটামুটি ১০০ টাকা থেকে ২০০ টাকার মধ্যেই। সুতরাং আপনি এক বা দুই ধরণের সেট কিনে বিভিন্ন কালার বা ডিজাইন এর কার্ড তৈরী করতে পারেন।

প্যাশন ফর পেপার্স, কাগজ ছাড়াও পেপার ক্র্যাফটিং এর জন্য অন্যান্য ম্যাটেরিয়াল যেমন – বিভিন্ন ধরণের ষ্ট্যাম্প, বিভিন্ন ধরণের এমবেলিশমেন্ট, কুইলিং এর বিভিন্ন উপকরণ (কুইলিং পেপার এবং টুলস), ওয়াসি টেপ, বিভিন্ন ধরণের পাঞ্চ, বাটন, বিডস, এডহেসিভ টেপ, গ্লু গান, গ্লু ষ্টিক সহ আরো নানা জিনিস বিক্রি করে থাকেন। এগুলো সাধারণত চীন থেকে আমদানীকৃত। তবে কখনও ষ্টকে জিনিস না থাকলে আপনি আগে থেকেই আপনার চাহিদা জানিয়ে রাখতে পারেন। এখানে আরেকটি ঘটনা উল্লেখ্য না করলেই না। কিছুদিন আগে তাসফিয়া এক ব্যক্তিগত সফরে বেলজিয়াম গিয়েছিলেন। তখনও তিনি ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী বেশ কিছু ক্র্যাফটিং ম্যাটেলিয়াল এনে দিয়েছিলেন। আমি নিজে যেমন এক জার হামা বিডস এবং দুই ধরণের গ্লু ষ্টিক (কালার এবং গ্লিটার) আনিয়েছিলাম। এই আইটেম দু’টো বাংলাদেশে পাওয়া যায় না।

তাসফিয়া এখনও পড়াশোনা করছেন, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিএ। তার ফাঁকে ফাঁকে নিজের শখ’কে ঘিরেই চালিয়ে যাচ্ছেন এই ক্র্যাফটিং ম্যাটেরিয়াল এর ব্যবসা।

প্যাশন ফর পেপার্স এর ফেসবুক পেজ
প্যাশন ফর পেপার্স এর ফেসবুক গ্রুপ

ফেসবুক মন্তব্য

রিফাত জামিল ইউসুফজাই

জাতিতে বাঙ্গালী, তবে পূর্ব পূরুষরা নাকি এসেছিলো আফগানিস্তান থেকে - পাঠান ওসমান খানের নেতৃত্বে মোঘলদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে। লড়াই এ ওসমান খান নিহত এবং তার বাহিনী পরাজিত ও পর্যূদস্ত হয়ে ছড়িয়ে পড়ে টাঙ্গাইলের ২২ গ্রামে। একসময় কালিহাতি উপজেলার চারাণ গ্রামে থিতু হয় তাদেরই কোন একজন। এখন আমি থাকি বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায়। কোন এককালে শখ ছিলো শর্টওয়েভ রেডিও শোনা। প্রথম বিদেশ ভ্রমণে একমাত্র কাজ ছিলো একটি ডিজিটাল রেডিও কেনা। ১৯৯০ সালে ষ্টকহোমে কেনা সেই ফিলিপস ডি ২৯৩৫ রেডিও এখনও আছে। দিন-রাত রেডিও শুনে রিসেপশন রিপোর্ট পাঠানো আর QSL কার্ড সংগ্রহ করা - নেশার মতো ছিলো সেসময়। আস্তে আস্তে সেই শখ থিতু হয়ে আসে। জায়গা নেয় ছবি তোলা। এখনও শিখছি এবং তুলছি নানা রকম ছবি। কয়েক মাস ধরে শখ হয়েছে ক্র্যাফটিং এর। মূলত গয়না এবং নানা রকম কার্ড তৈরী, সাথে এক-আধটু স্ক্র্যাপবুকিং। সাথে মাঝে মধ্যে ব্লগ লেখা আর জাবর কাটা। এই নিয়েই চলছে জীবন বেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.