ফটোগ্রাফি টিপস ১

টিপস নাম্বার ১

ফটোগ্রাফীর ক্ষেত্রে অনুপ্রেরণা একটা বড় জায়গা দখল করে আছে। প্রথম যখন ক্যামেরা কিনবেন প্রথম কয়দিন বাসার আশপাশ আর পরিবারের লোকজনের ফটো তুলতে তুলতে একসময় ক্লান্ত হয়ে পড়বেন। এরপর বাইরে যাবেন বেড়াতে প্রচুর ছবি তুলবেন, রাস্তায় নামবেন পথ চলতে চলতে ছবি তুলবেন, এমন কি বিয়ে বাড়ীতে গেলেও। এক সময় দেখবেন আপনার ফটোগুলি সব একরকম হয়ে যাচ্ছে, টিপিক্যাল। এই টিপিক্যাল অবস্থা থেকে বের হয়ে একজন সত্যিকার ফটোগ্রাফার হয়ে উঠতে দরকার অনুপ্রেরণা। আর এই অনুপ্রেরণা আপনি পেতে পারেন বিখ্যাত সব ফটোগ্রাফারের তোলা ফটোগ্রাফ দেখে। বাংলাদেশে ফটোগ্রাফী ম্যাগাজিন বা বইপত্র খূব একটা সহজ লভ্য না, আবার যাও বা পাওয়া যায় সবই দূর্মূল্য। তাই সময় পেলেই নেট ব্রাউজ করুন – বিখ্যাত সব ফটোগ্রাফারের পাশাপাশি আপনার আশে পাশের ফটোগ্রাফারদের ফটো দেখুন। যত ফটোগ্রাফ দেখবেন আপনার দেখার চোখ তত খুলবে। পেয়ে যাবেন আপনার নতুন কোন আইডিয়া।

টিপস নাম্বার ২

হয়তো কোথাও ফটো তুলতে গেছেন। সারাদিন রোদে পূড়ে, ঘামে ভিজে ফটো তুলেছেন অজস্র। রাতে ফিরে এসে ফটো বাছতে গিয়ে দেখেন কোন ফটোই ঠিক মনঃপুত হচ্ছে না। মনে হচ্ছে এই ফটোটা এমন করে তুললে মনে হয় ভাল হতো কিংবা ঐ ফটোর এঙ্গেলটা আসলে ঠিক হয় নাই। এরকমটা হতেই পারে। ভুলগুলো বের করুন, নোট করুন লিখে। এরপর আরেকবার যান সময় করে একই জায়গায়। নতুন করে আবার ফটো তুলুন। হয়তো এবার বেশ কয়েকটা দারুণ ফটো পেয়ে যাবেন। কেবল মনে রাখবেন আগেরবারের মতো করে না, সম্পূর্ণ নতুন ভাবে দেখতে হবে এবার।

টিপস নাম্বার ৩

দূরে কোথাও যাচ্ছেন ল্যান্ডস্কেপ ফটোগ্রাফী করতে, যাওয়ার আগে একটু হোমওয়ার্ক করে নিন জায়গাটা সম্পর্কে। দেখার কি আছে, যাতায়াত ব্যবস্থা কেমন এসবের সাথে সাথে নেটে খোঁজ করুন সেই জায়গাগুলির কি কি ফটোগ্রাফ আছে। অনলাইন ফোরামগুলিতে জানতে চান কোন এলাকায় কোন সময় ফটো তুলতে গেলে ভাল হয়। আপনি হয়তো এমন এক জায়গায় গেছেন বিকালে, সেখানে আসলে ফটো তোলার ভাল সময় হলো সকালবেলা। অন্যদের তোলা ফটো দেখতে দেখতে আপনি যেমন অনুপ্রেরণা পাবেন, সেই সাথে নিজের কিছু আইডিয়াও চলে আসতে পারে।

টিপস নাম্বার ৪

এক্সপেরিমেন্ট করুন যখন তখন। হয়তো বাসায় বসে আছেন তেমন কোন কাজ নেই হাতে। প্রিয় ডিএসএলআর ক্যামেরাটি নিয়ে চলে যান ছাদে অথবা এক চিলতে বারান্দায়। ছোট ভাই বা বোন থাকলে তো কথাই নেই, না পেলে বাসার কাজের পিচ্চিটাকে মডেল বানিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করতে। আপনার ক্যামেরার যত ধরণের সেটিংস আছে সব ট্রাই করুন। একদিনে হয়তো সব হবে না, কিছু কিছু করে করুন। যেমন আপনার লেন্সের কোন ফোকাল লেন্থে কোন এক্সপোজারে কেমন ছবি আসে সেটা দেখুন। আইএসও, হোয়াইট ব্যালান্স পরিবর্তনে কি কি সুফল পান সেটা ট্রাই করে দেখুন আরেকদিন। ভাল ফটো তোলার পূর্ব শর্তই হলো আপনার নিজের ক্যামেরার সেটিংস সম্পর্কে আপনার স্বচ্ছ ধারণা থাকতে হবে।

টিপস নাম্বার ৫

নতুন কিছু করার চেষ্টা করুন সবসময়। আপনি হয়তো সব সময় ল্যান্ডস্কেপ বা পোর্ট্রেট ফটোগ্রাফী করতে ভালবাসেন। একদিন বেড়িয়ে পড়ুন রাস্তায় ক্যামেরা হাতে। ষ্ট্রিট ফটোগ্রাফীতে মজা পাবেন নিঃসন্দেহে। নতুন কোন ফটোষ্টোরির আইডিয়াও মাথায় চলে আসতে পারে চটজলদি।

[পূর্বে প্রকাশিত]

ফেসবুক মন্তব্য

রিফাত জামিল ইউসুফজাই

জাতিতে বাঙ্গালী, তবে পূর্ব পূরুষরা নাকি এসেছিলো আফগানিস্তান থেকে - পাঠান ওসমান খানের নেতৃত্বে মোঘলদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে। লড়াই এ ওসমান খান নিহত এবং তার বাহিনী পরাজিত ও পর্যূদস্ত হয়ে ছড়িয়ে পড়ে টাঙ্গাইলের ২২ গ্রামে। একসময় কালিহাতি উপজেলার চারাণ গ্রামে থিতু হয় তাদেরই কোন একজন। এখন আমি থাকি বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায়। কোন এককালে শখ ছিলো শর্টওয়েভ রেডিও শোনা। প্রথম বিদেশ ভ্রমণে একমাত্র কাজ ছিলো একটি ডিজিটাল রেডিও কেনা। ১৯৯০ সালে ষ্টকহোমে কেনা সেই ফিলিপস ডি ২৯৩৫ রেডিও এখনও আছে। দিন-রাত রেডিও শুনে রিসেপশন রিপোর্ট পাঠানো আর QSL কার্ড সংগ্রহ করা - নেশার মতো ছিলো সেসময়। আস্তে আস্তে সেই শখ থিতু হয়ে আসে। জায়গা নেয় ছবি তোলা। এখনও শিখছি এবং তুলছি নানা রকম ছবি। কয়েক মাস ধরে শখ হয়েছে ক্র্যাফটিং এর। মূলত গয়না এবং নানা রকম কার্ড তৈরী, সাথে এক-আধটু স্ক্র্যাপবুকিং। সাথে মাঝে মধ্যে ব্লগ লেখা আর জাবর কাটা। এই নিয়েই চলছে জীবন বেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.