মন ভাল নেই

চারিদিকে কেবল ঋনাত্মক খবর। পদ্মা সেতু’তে মানুষের মাথা লাগবে এই গুজবে ভর করে এপর্যন্ত গনপিটুনিতে ৭জন মারা গেছে। তারপরও গনপিটুনি থেমে নেই। গ্রেফতারও চলছে। ৮১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কত দিনে স্তিমিত হবে এই গুজব আর গনপিটুনি কে জানে।

ঢাকায় এদিকে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছেই। হাসপাতাল গুলিতে নাকি নতুন করে রোগী ভর্তি করতে পারছে না। সিটি করপোরেশনগুলির ব্যর্থতা এখন রীতিমতো প্রকাশ্য। খবরে দেখলাম মশা মারার ঔষধ আনতে আক্টোবর মাস লেগে যাবে। মানে ততোদিনে ডেঙ্গুর সিজনও শেষ। দক্ষিন এশিয়ার দেশগুলিতে নাকি নতুন করে ম্যালেরিয়া ছড়াচ্ছে। সমস্যা হলো প্রচলিত কোন ঔষধেই এগুলো আর সারছে না।

দেশে বন্যা পরিস্থিতি ভাল না। নানা রকম খারাপ খবরের ভিড়ে এবারের বন্যা মনে হয় কারো চোখেই তেমন ভাবে ধরা পরছে না। সেদিন পত্রিকায় পড়লাম এবারের বন্যা প্রলম্বিত হতে পারে।

এতো সব কিছু দেখে সেই পুরানো কথাটিই মনে আসছে যায় দিন ভাল, আসে দিন খারাপ। কিংবা বলতে পারি এতো কিছুর পরও যে বেঁচে আছি সেটাই বড় প্রাপ্তি।

রিফাত জামিল ইউসুফজাই

জাতিতে বাঙ্গালী, তবে পূর্ব পূরুষরা নাকি এসেছিলো আফগানিস্তান থেকে - পাঠান ওসমান খানের নেতৃত্বে মোঘলদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে। লড়াই এ ওসমান খান নিহত এবং তার বাহিনী পরাজিত ও পর্যূদস্ত হয়ে ছড়িয়ে পড়ে টাঙ্গাইলের ২২ গ্রামে। একসময় কালিহাতি উপজেলার চারাণ গ্রামে থিতু হয় তাদেরই কোন একজন। এখন আমি থাকি বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায়। কোন এককালে শখ ছিলো শর্টওয়েভ রেডিও শোনা। প্রথম বিদেশ ভ্রমণে একমাত্র কাজ ছিলো একটি ডিজিটাল রেডিও কেনা। ১৯৯০ সালে ষ্টকহোমে কেনা সেই ফিলিপস ডি ২৯৩৫ রেডিও এখনও আছে। দিন-রাত রেডিও শুনে রিসেপশন রিপোর্ট পাঠানো আর QSL কার্ড সংগ্রহ করা - নেশার মতো ছিলো সেসময়। আস্তে আস্তে সেই শখ থিতু হয়ে আসে। জায়গা নেয় ছবি তোলা। এখনও শিখছি এবং তুলছি নানা রকম ছবি। কয়েক মাস ধরে শখ হয়েছে ক্র্যাফটিং এর। মূলত গয়না এবং নানা রকম কার্ড তৈরী, সাথে এক-আধটু স্ক্র্যাপবুকিং। সাথে মাঝে মধ্যে ব্লগ লেখা আর জাবর কাটা। এই নিয়েই চলছে জীবন বেশ।