প্রোডাক্ট রিভিউ : সনি ব্যাটারি চার্জার

মডেল : BCG-34HH4KN
ব্র্যান্ড : সনি
মূল্য : ৳ ২০০০.০০ (৪টি রিচার্জেবল ব্যাটারি সহ)
প্রাপ্তিস্থান : SONY Rangs এর শো রুম

যারা ক্যামেরা ব্যবহার করেন তাদের পেনসিল ব্যাটারী লাগেই। কম দামী পয়েন্ট এন্ড শুট ক্যামেরাতে এখনও এই পেনসিল ব্যাটারি ইউজ হয়, যারা ডিএসএলআর ইউজ করেন তারা এক্সটার্নাল ফ্ল্যাশ এ ব্যবহার করেন। তবে এলকালাইন ব্যাটারি ব্যবহার করা খূবই খরচের, তাই প্রয়োজন রিচার্জেবল ব্যাটারির। আর রিজার্জেবল ব্যাটারি রিচার্জ করার করার জন্য প্রয়োজন চার্জারের। বাজারে অনেক রকমের চার্জার আছে।

সাধারণ চার্জার আমি ব্যবহার করছি বেশ কয়েক বছর ধরে। এবার কিনলাম BCG-34HH4KN এই মডেলটি। ৪টি 2100 mAh Ni-MH AA (পেনসিল) ব্যাটারি সহ এর মূল্য ৳ ২০০০.০০, পাবেন SONY Rangs এর যে কোন শো রুম এ। এই চার্জারটি ১০০ থেকে ২৪০ ভোল্ট এ কর্মক্ষম। এই চার্জার দিয়ে AA এবং AAA সাইজের 2700 mAh ব্যাটারি রিচার্জ করতে পারবেন। চার্জারটি এলকালাইন ব্যাটারি ডিটেক্ট করতে পারে। চার্জ হয়ে গেলে ইন্ডিকেটর লাইট অফ হয়ে যায়। চার্জে দিলে ১৫ ঘন্টা পর চার্জারটি স্বয়ংক্রিয় ভাবে বন্ধ (অফ) হয়ে যাবে।

ভাল দিক : সনি সব সময়ই তাদের প্রোডাক্টের গুণগত মান রক্ষা করে থাকে। প্রতিটি ব্যাটারী ১০০০ বার করে রিচার্জ করা যায়।
খারাপ দিক :  চার্জারের পিনগুলো ফোল্ডেবল না। কোন বক্সে বা ড্রয়ারে রাখতে গেলে অতিরিক্ত জায়গা লাগে।

সাবধানতা : বাজারে প্রচুর নকল সনি ব্যাটারি পাওয়া যায়। তাই সনি ব্যাটারি কিনলে সব সময়ই SONY Rangs এর শো রুম থেকে কিনবেন। কখনই এসব চার্জারে এলকালাইন ব্যাটারি চার্জ করতে যাবেন না, বিস্ফোরিত হতে পারে।

রিফাত জামিল ইউসুফজাই

জাতিতে বাঙ্গালী, তবে পূর্ব পূরুষরা নাকি এসেছিলো আফগানিস্তান থেকে - পাঠান ওসমান খানের নেতৃত্বে মোঘলদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে। লড়াই এ ওসমান খান নিহত এবং তার বাহিনী পরাজিত ও পর্যূদস্ত হয়ে ছড়িয়ে পড়ে টাঙ্গাইলের ২২ গ্রামে। একসময় কালিহাতি উপজেলার চারাণ গ্রামে থিতু হয় তাদেরই কোন একজন। এখন আমি থাকি বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায়। কোন এককালে শখ ছিলো শর্টওয়েভ রেডিও শোনা। প্রথম বিদেশ ভ্রমণে একমাত্র কাজ ছিলো একটি ডিজিটাল রেডিও কেনা। ১৯৯০ সালে ষ্টকহোমে কেনা সেই ফিলিপস ডি ২৯৩৫ রেডিও এখনও আছে। দিন-রাত রেডিও শুনে রিসেপশন রিপোর্ট পাঠানো আর QSL কার্ড সংগ্রহ করা - নেশার মতো ছিলো সেসময়। আস্তে আস্তে সেই শখ থিতু হয়ে আসে। জায়গা নেয় ছবি তোলা। এখনও শিখছি এবং তুলছি নানা রকম ছবি। কয়েক মাস ধরে শখ হয়েছে ক্র্যাফটিং এর। মূলত গয়না এবং নানা রকম কার্ড তৈরী, সাথে এক-আধটু স্ক্র্যাপবুকিং। সাথে মাঝে মধ্যে ব্লগ লেখা আর জাবর কাটা। এই নিয়েই চলছে জীবন বেশ।